রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম কেন হবে, প্রশ্ন ব্যারিস্টার সুমনের

রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম প্রসঙ্গে দিন কয়েক আগে একাত্তর টিভির একটি ‘টক শো’ দেখছিলাম। আলোচনায় উপস্থাপিকা, আলোচকবৃন্দ বনাম লাইভ অতিথির মধ্যে যে ঝড়ো কূটতর্কের তেলেসমাতি দেখলাম তা বোধ করি না বলাই ভালো। টক শো’ উপস্থাপনা বা আলোচনায় কেউকেটাদের শালীনতার ঘাটতি থাকতেই পারে, এটা মেনে নিয়ে আমরা তা দেখছি। কিন্তু বিদ্যার স্বরস্বতীকে পানাডোবায় চুবিয়ে ভদ্র মহোদয়-মহোদয়াগণ দৃঢ়তা ও আত্মবিশ্বাসের (!) সঙ্গে এভাবে দিস্তা দিস্তা ভুল তথ্য প্রদানে সিদ্ধহস্ত হয়েছেন- সতিই তা আমার অজানা ছিল।

আলোচনা শেষে জ্ঞানীজনের বাণীতে জানলাম, মালয়েশিয়া, ইরাক, ইরান, মরোক্কো কোনোটাতেই ইসলাম রাষ্ট্রধর্ম নয় এবং ভ্যাটিকান সিটি বাদে বিশ্বের আর কোনো দেশ রোমান ক্যাথলিসিজমের মাধ্যমে পরিচালিত হয় না । ভুল করে অন্য দুই একটি দেশের নাম বললে ভালো হতো। কপাল খারাপ হলে যা হয়, যে কয়টা দেশের নাম এলো তাদের সব কয়টিতেই ইসলাম রাষ্ট্রধর্ম বা অফিসিয়াল ধর্ম হিসেবে স্বীকৃত। মালয়েশিয়া রাষ্ট্রীয় আচরণে যে ধর্মনিরপেক্ষ তা অস্বীকার করার জোঁ নেই, কিন্তু ইসলাম দেশটির সংবিধানস্বীকৃত ধর্ম।

ওদের সংবিধানের ৩(১) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, “Islam is the religion of the Federation; but other religions may be practised in peace and harmony in any part of the Federation”। সংবিধানে ধ‍র্মের উল্লেখ থাকলেও একটি দেশ ধ‍র্মীয় আচরণে কতটা ধ‍র্মনিরপেক্ষ হতে পারে, মালয়েশিয়ার তার এক নিখাঁদ উদাহরণ। বাকীটুকু বলতে একটু শিবের গীত প্রয়োজন ।

পৃথিবীতে কতজন মানুষ এখন ধর্মে বিশ্বাসী- এ প্রশ্ন নিয়ে যত বেশি গবেষণা হয়েছে লব্ধ ফলে তথ্যের ফারাক তার চেয়েও অনেক বেশি। পিউ রিসার্চ সেন্টার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংনভিত্তিক একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাদের গবেষণার আন্তর্জাতিক পরিচিতি আছে। এ প্রতিষ্ঠান ২০১২ সালে বিশ্বের ধর্মাবলীদের সংখ্যা নিয়ে একটি গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

তাদের হিসাবে বর্তমানে বিশ্বের ৮৩ দশমিক ৬ শতাংশ মানুষ কোনো না কোনো ধর্মে বিশ্বাসী। অন্যদিকে অবিশ্বাসীদের সংখ্যা ১৬ দশমিক ৪ শতাংশ। সংখ্যায় বললে, বিশ্বের ১০০ কোটির বেশি মানুষ এখন ধর্মে অবিশ্বাসী। ধর্মে অবিশ্বাসকে যদি ধর্ম বলা যায় তবে সংখ্যা তত্ত্বের বিচারে নাস্তিক্য ধর্ম বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ধর্ম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *